• support@microhostbd.com
  • +8801886584839
  • Online: 8.00 Am T0 10 PM (GMT+6)
  • Login
80k+

Active Courses

33k+

Active Students

278k+

Video Courses

80k+

Active Course

ফাজি লজিক কাকে বলে

ফাজি লজিক কাকে বলে?

ফাজি লজিক কি এটা জানার আগে এর ইতিহাস জানা দরকার:
১৯৬৫ সালে লতফি জাদেহ সর্বপ্রথম ফাজি লজিক সম্পর্কে ধারণা দেন । তিনি একজন ইরানী ও আজারবাইজানী বংশোদ্ভূত মার্কিন কম্পিউটার বিজ্ঞানী। লতফি জাদেহকে ফাজি লজিকের জনক বলা হয়।
এটি একটি প্রক্রিয়া যাতে মানব মস্তিস্কের অনুরূপে কোন যুক্তি প্রয়োগ করে সিদ্ধান্তে আসা হয়। সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে শুধু হ্যাঁ বা না ই নয়, এর মাঝা মাঝি সম্ভাব্য় সব রকম উত্তর গ্রহণ করা হয় অর্থাৎ যে যুক্তি ব্যবস্থায় কোন সমস্যার সমাধান ১ (হ্যাঁ) অথবা ০ (না) ছাড়াও আরো বিভিন্ন উপায়ে দেওয়া যায়, তাকে ফাজি লজিক বলে।

বাইনারি ব্যাবস্থায় একটি সমস্যার সমাধান ‘হ্যাঁ’ অথবা ‘না’ – এই দু’টি উপায়ে দেয়া যায়। কিন্তু ফাজি লজিকে একটি সমস্যার সমাধান দুইয়ের অধিক উপায়ে দেওয়া যায়। চলুন একটি উদাহরণের সাহায়্যে বিষয়টা বুঝা যাক:-যদি প্রশ্ন করা হয় ‘এখন কি রাত?’ বাইনারী ব্যবস্থায় উত্তর হবে – ‘হ্যাঁ’ অথবা ‘না’; অন্যদিকে, ফাজি লজিকে হ্যাঁ অথবা না ছাড়াও আরো উত্তর হতে পারে – মধ্যরাত, শেষরাত, সুবহে সাদিক ইত্যাদি।
ব্যবহার
ফাজি লজিকের ব্যবহার সর্বপ্রথম হয় জাপানে। বর্তমানে ফাজি লজিক পানির মান নিয়ন্ত্রণ, স্বয়ংক্রিয় রেল নিয়ন্ত্রণ, লিফট নিয়ন্ত্রণ, পারমাণবিক চুল্লি নিয়ন্ত্রণসহ গুরুত্বপূর্ণ নানা ক্ষেত্রে ব্যবহার হচ্ছে।

প্রতিটা ফাজি লজিক সিস্টেমে চারটা প্রধান অংশ রয়েছে। সেগুলো হচ্ছেঃ
=> Fuzzification Module
=>Knowledge Base
=>Inference Engine
=>Defuzzification Module
Fuzzification Module: ফাজিফিকেশন মডিউলে ট্র্যাডিশনাল ডেটা ইনপুট হিসেবে নেয়। এরপর সেগুলোকে ফাজি সেটে ভাগ করে।
Knowledge Base: Knowledge Base এবিভিন্ন রুল গুলো সেট করা থাকে। সাধারণত IF-THEN রুলস।
Inference Engine: ইনফিয়ারেন্স ইঞ্জিনে ইনপুট ডেটা গুলোকে Knowledge Base থাকা রুল এর উপর ভিত্তি করে মানুষ যেভাবে চিন্তা করে, সেভাবে অনুকরণ করে।
Defuzzification Module: Defuzzification Module এ আবার ইনফিয়ারেন্স ইঞ্জেনে প্রাপ্ত ফাজি সেটকে আবার ট্র্যাডিশনাল সেট যাকে বলে Crisp Set এ রূপান্তরিত করে।
আমাদের চারপাশের অনেক গুলো প্রোডাক্টে ফাজি লজিক ব্যবহৃত হচ্ছে। যেমন এসি, মাইক্রোওয়েব ওভেন, ক্যামেরা, ওয়াশিং ম্যাশিন ইত্যাদিতে। এছাড়া এখনকার ড্রাইভারলেস গাড়ি গুলোতে ফাজি লজিক ব্যবহৃত হচ্ছে বা হবে।
আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এর খুব দরকারি একটা শাখা হচ্ছে এই ফাজি লজিক। রোবটের মত প্রিসাইসলি সব কিছু না করে মানুষের মত সিস্টেম তৈরি করতে এটি খুব কাজে দিচ্ছে এবং দিবে। এক সময় সত্যি সত্যি এমন রোবট তৈরি হবে, আমরা বুঝতেও পারব না এটা রোবট নাকি মানুষ।

Microhostbd

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *